শহরের দক্ষিণ তারাবনিয়ার ছড়া শহীদ তিতুমীর গলিতে চলছে ছিনতাই, হয়রানী হচ্ছে পথচারি

0
879

মুরাদ মাহমুদ,সিএনবি,কক্সবাজারঃ

কক্সবাজার শহরের ০৭ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ তারাবনিয়ার ছড়া শহীদ তিতুমীরের সংলগ্ন গলিতে বেড়েছে বকাটের উৎপাত রীতিমতো চলছে ছিনতাই,হচ্ছে হয়রানীর শিকার স্থানীয় পথচারিরা।

সম্প্রতি কক্সবাজারের দক্ষিন তারাবনিয়ার ছড়ার শহীদ তিতুমীর ইনস্টিটিউট সংলগ্ন গলিতে বাড়ছে ছিনতাই ও নানা হয়রানি এমনটাই অভিযোগ স্থানীয় পথচারিদের। দিন পেরিয়ে রাত এলেই গলিটি হয়ে যায় ঘন অন্ধকার। পর্যাপ্ত বৈদ্যুতিক খুটি থাকলেও লাইটের সুব্যবস্থা না থাকায় গলিটি হয়ে উঠে ঝুঁকিপূর্ণ ছিনতাইকারীরা উৎ পেতে থাকে গলির অন্ধকার কিনারা ঘিরে।

পরিচিত-অপরিচিত যাকেই পাচ্ছে হাতিয়ে নিচ্ছে সর্বস্ব। এছাড়া বিকেলে প্রাইভেট শেষে বাড়ি ফিরে আসা ছাত্রীরা ইভটিজিংয়ের স্বীকার হচ্ছে বলে জানা যায়। গত ২০ ফেব্রুয়ারী শহীদ তিতুমীর স্কুলের পাশের অন্ধকার টেকে এমন হয়রানির স্বীকার হয় কক্সবাজার কমার্স কলেজের এক শিক্ষক জসিম উদ্দিন।

তিনি জানান- আমি পূর্ব পাহাড়তলী এক ছাত্রের বাড়ি থেকে ফেরার পথে শহীদ তিতুমীরের গলিতে আমাকে তিনজন মুখে মাস্ক পড়া বকাটে রাস্থা আবরোদ্ধ করে আক্রমন করে মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। ছিনতাইকারীদের সবার হাতে ধারালো ছুরি ছিল বলে জানান তিনি।

এছাড়া গলির ব্যাচেলর বাসাগুলোতে ও বেশ কয়েকবার ছিনতাই ও হামলা করে বলে জানান বসবাসরত ব্যাচেলররা। এমন এক পরিস্থিতির শিকার এক ব্যাচেলর ভাড়াটে জানান- কিছুদিন আগে রাত ৮ টার দিকে ৫ জন ছিনতাইকারী মুখে কাপড় পেছিয়ে আমার বাসায় প্রবেশ করে আমাকে মারধর করে মোবাইল, টাকা, ল্যাপটপ সহ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস নিয়ে যায়।

এই ব্যাপারে স্থানীয় ৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মো: রুবেল চৌধুরী জানান- এই গলিতে এমন ঘটনা নিত্যদিনের প্রায় শুনি হয়রানি ও ছিনতাইয়ের ব্যাপারে। তবে এখনো পর্যন্ত তেমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দেখা যায় নি সচেতন মহলের। এই ছিনতাই ও হয়রানি থেকে অতি শিঘ্রই পরিত্রাণের জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে শহীদ তিতুমীরের গলিতে সিসি ক্যামেরার ব্যবস্থা করলে ছিনতাইকারীদের সনাক্ত সহজ হবে।

স্থানীয় পথযাত্রী আব্দুর রহমান জানান – বিশেষ করে শহীদ তিতুমীরের গলিতে টেকনাফ পাহাড় ও ইছুলুর ঘোনার মানুষের আনাগোনা বেশি। তারাই চলাচলের জন্য এই রাস্তা ব্যবহার করে। এইখানে অপ্রীতিকর ঘটনার পেছনে তাদের মধ্যে কিছু দুষ্টু ছেলেদের যোগসুত্র রয়েছে।

অতি শিঘ্রই বড় ধরণের কোন মারত্নক ঘটনা ঘটার পূর্বে গলিতে ০৭ নং ওয়ার্ড বাসীর নিরাপত্তা রক্ষার্থে সিসি ক্যামেরা স্থাপন,গলিতে পর্যপ্ত লাইটের সুব্যবস্থা ও ছিনতাইকারীদের সনাক্ত করতে প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

article bottom

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here