শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী আওয়ামীলীগের সভাপতি হতে চায়

0
141

বিশেষ প্রতিনিধিঃ স্বারাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভূক্ত শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী এখন আওয়ামীলীগের সভাপতি হতে চায়। হাম জালাল নামের  টেকনাফ সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থীর বিরুদ্ধে মাদক ও অস্ত্র আইনের অন্তত ৯ মামলা রয়েছে। স্বারাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের মাদক ব্যবসায়ীর তালিকায় শীর্ষে থাকা টেকনাফ সদর ইউনিয়নের ছোট হাবিবপাড়ার হাজী খলিলুর রহমানের ছেলে হাম জালাল (৪৪)। কিছুদিন আগে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা পাচারের সময় পুলিশির সাথে বন্দুকযুদ্ধে তার ছোট ভাই ইয়াবা ব্যবসায়ী বাহাদুর নিহত হয়েছে।

এত মামলার আসামী হলেও নব্য আওয়ামীলীগ বনে যাওয়ায় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ইয়াবার এ শীর্ষ গডফাদার। 
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত আসামী হলেও এবার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রার্থী তিনি। আগামী ১৫ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য টেকনাফ সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলনে নিজেকে সভাপতি প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন। আর এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা ঝড়।  

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ছোট হাবিবপাড়ার মোহাম্মদ জালাল ওরফে হাম জালাল মেম্বার দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন থানায় ৯টি মামলা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে, ইয়াবা ও অস্ত্র আইনের মামলা।  আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সুত্রে পাওয়া এসব মামলার মধ্যে, টেকনাফ থানায় রয়েছে ৮ মামলা ও চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানায় হয়েছে একটি। তার মধ্যে একটি এসিড মামলা। এছাড়াও তার ভাই বাহাদুর মিয়ানমার থেকে ইয়াবা আনতে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।

টেকনাফের ত্যাগী আওয়ামীলীগ নেতারা দাবি করেছেন, যেখানে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মাদকের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান চলছে সেখানে হাম জালালরা কি করে সেই আওয়ামীলীগের সভাপ্রার্থী হয়।

তারা অভিযোগ করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের কিছু নেতাকর্মীরা এদের প্রশ্রয় দেয়ার কারণে আজ দলটির এ অবস্থা। 
এ ব্যাপরে জানতে চাইলে, হাম জালাল মেম্বার জানান, তিনি দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামীলীগ করছেন। তার পুরো পরিবার আওয়ামীলীগের  রাজনীতির সাথে জড়িত। তার বিরুদ্ধে ইয়াবা পাচারের অভিযোগ ও মামলা ষড়যন্ত্রমূলক। দলের নেতাকর্মীদের দাবির মুখে তিনি সভাপতি প্রার্থী হয়েছেন।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডঃ সিরাজুল মোস্তফা বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের স্থান আওয়ামীলীগে হবে না। হাম জালালের বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসার সু নির্দিষ্ট অভিযোগ আছে। দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সে সভাপতি প্রার্থীই হতে পারবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here