মাস ব্যাপী বৃক্ষরোপন ও বিতরণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে চারা বিতরণ ও বৃক্ষরোপন

0
72

আহসান উল্লহ্,সিএনবি,মহেশখালীঃ
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বন ও পরিবেশ উপকমিটি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ঘোষিত মাস ব্যাপী বৃক্ষরোপন ও বিতরণ কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সবুজ পরিবেশ আন্দোলন কক্সবাজারের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের

মাঝে গাছের চারা বিতরণ ও কলেজ আঙ্গিনায় বৃক্ষরোপণ অভিযানে পালন করেন। উক্ত চারা বিতরণ ও বৃক্ষরোপন  অভিযানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ইসমাইল হোসেন তপু। উপস্থিত ছিলেন মহেশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক জনাব আলহাজ্ব মোস্তফা আনোয়ার চৌধুরী।উপস্থিত ছিলেন সরকারী বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজ এর  অধ্যক্ষ জনাব  মোহাম্মদ  হোছাইন,প্রভাষক সরওয়ার কামাল মন্জু,এতে আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ছাত্রলীগ,যুবলীগের নেতৃবৃন্দ সহ শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দ।

যে যে স্থানে বৃক্ষরোপণ করা হয়ঃ-সর্ব প্রথম মহেশখালী উপজেলার বঙ্গবন্ধু সরকারি মহিলা কলেজর প্রাঙ্গণে বৃক্ষরোপন করা হয়। এর পর সরাসরি  বড় মহেশখালী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গনে বৃক্ষরোপন করা হয়।

সিএনবি মতামত গ্রহণঃমাস ব্যাপি বৃক্ষরোপন সম্পর্কে জানতে চাইলে আলহাজ্ব মোস্তফা আনোয়ার  চৌধুরী কক্স নিউজ বিডি (সিএনবি)’র প্রতিনিধিকে বলেন – মহেশখালী উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়নে ইউনিয়নে বৃক্ষ রোপন করা হয়েছে যেহেতু বৃক্ষ মানুষের শরীরের সব চেয়ে বেশি প্রয়োজনীয় জিনিস যোগান দেয় অথ্যাৎ অক্সিজেন দান করেন।সেহেতু আমাদের উচিৎ প্রত্যেক ঘরের আশ পাশের জায়গা জুড়ে আমরা বনজ ও ফলজ বৃক্ষ রোপন করে সমাজের,দেশের যে প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে সে ভারসাম্য আমরা রক্ষা করতে পারি। এছাড়া বনজ গাছ আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রচুর উপকারে আসে এবং সবুজ শ্যামল পরিবেশ গড়ে তুলতে সাহায্য করে।আর ফলজ গাছ আমাদের শরীরের যে ভিটামিনের ঘাটতি থাকে তা পূরণ করে তাই আমরা বৃক্ষ রোপন করবো আর সকল ছাত্র -ছাত্রীদের উদ্ধুদ্ধ করবো যাতে তারা পরিবারের সকল সদস্যবৃন্দের নিয়ে বাড়ির আশ পাশের এরিয়াতে বৃক্ষরোপনে উৎসাহিত করতে পারে।এবং তিনি সকল পৌরবাসী সহ মহেশখালী উপজেলায় বসবাসরত সকল জনগণকে বিণীত ভাবে আহ্বান করেন আর একটি কথা বলেন – “গাছ লাগান পরিবেশ বাঁচান “।

উপদেশ প্রদানঃ-মহেশখালী উপজেলা জনপ্রিয় তরুণ প্রজন্মের নেতা জনাব আলহাজ্ব মোস্তফা আনোয়ার চৌধুরী আরো বলেন – যদি কোথাও বিনা কারণে গাছ কেঁটে বন উজাড় করার খবর পেয়ে থাকেন তাহলে আপনারা আমাকে জানাবেন আমি সরাসরি তাদের বিরোদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।এবং তিনি অনুরুদ করেন দয়া করে বিনা কারণে কোন বৃক্ষ কেঁটে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করবেন না। যদি ভারসাম্য নষ্ট করেন তাহলে দেশের আবহাওয়া পরিবেশ সব কিছু আমাদের প্রতিকূলতায় কাটাতে হবে। তখন শত প্রচেষ্টার পরেও আর পরিবেশকে ফিরিয়ে আনা যাবে না।সুতরাং আমাদের গাছ কাঁটা বা নষ্ট করা হতে বিরত থাকতে হবে এবং অন্যকে ও প্রচার প্রচারণার মাধ্যমে  সেই সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে হবে।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here