পর্যটকেদের মন কেড়েছ মহেশখালী -সোনাদিয়া জাহাজের শহীদ এস.টি সুকান্ত বাবু।

0
121

হুমায়ন কবির হিমু,কক্সবাজার সদরঃ  মৌসুমী বায়ুর পরশে কক্সবাজারের প্রকৃতি গায়ে জড়িয়েছে হিমশীতল চাঁদর। হিম হিম শীতের পরশে ঝিরিঝিরি বৃষ্টিতে পৌষের একটুখানি গন্ধ মেখে প্রকৃতিতে এসেছে হেমন্ত। আর হেমন্তের পাতাঝরা দিনে সোনালি বরণ ধারণ বাক খালীর নদীর মোহনা দিয়ে উকি দেয় অবিরাম অবিশ্রান্ত ঢেউ হয়ে ছুঁটে আসা সুনীল সুগভীর বঙ্গোপসাগর আর কক্সবাজার – বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত এবং মহেশখালীতে বিভিন্ন দর্শনীয় স্পট ঘুরে দেখার অসাধারণ দৃশ্য।

লাল কাঁকড়ার দৃশ্য,বাকখালী নদীর মোহনা দর্শন,সূর্য্যাস্থ অবলোকন, সবুজ ম্যানগ্রোভ সহ,মোট ৭ টি দর্শনীয় স্থান অবলোকন, দুপুরে আদিনাথ মন্দিরে শীপ তড়ি ভিরানোর পর দুপুরে খাবারের ব্যবস্থা সহ আবার কক্সবাজারে ফেরার পথে সিজেনাল ফ্রুটস বিতরণ করা হয় এই শীপে। এতে ব্যাপক সাড়া মেলেছে শহীদ এস. সুকান্ত বাবু শীপে।

ফারহান ট্যুরিজম এন্ড এক্সপ্রেস এর পরিচালক হুসাইন ইসলাম বাহাদুরের সাথে কথা বলে জানা যায়- তিনি বলেন আমরা আলহামদুলিল্লাহ্ পর্যটকদের যতেষ্ট সাড়া পাচ্ছি এবং ভ্রমণ পিপাসুরাও অনেক হ্যাপি। আমরা চাই পর্যটকদের নিরাপত্তা  এবং সেবার গুনগত মান বাজায় রাখতে এবং আমরা তা করে যাচ্ছি। 

ফারহান ট্যুরিজম এক্সপ্রেস এর প্রধান ম্যানেজার সৈয়দ হোসেন বলেন- আমরা প্রতিদিন প্রায় ২০০ শত যাত্রী নিয়ে মহেশখালী -সোনাদিয়া নৌরুটে যাত্রীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছি আশা করি আমরা পর্যটকের এই সেবার মান ধরে রাখতে পারব। কক্সবাজারের নুনিয়ার ছড়া তিন রাস্তার মোড় হতে প্রতিদিন সকাল ১০ টা  নিয়মিত যাতায়াত করে শহীদ এস টি সুকান্ত বাবু। এই প্যাকেজের জন প্রতি দুপুরের খাবার সহ, ১২০০ শত টাকা নির্ধারণ করায় পর্যটক ও অনেক খুশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here