একাধিক মামলার আসামী অস্ত্র,গুলি,ইয়াবা সহ আটক

0
106
coxnewsbd


নিজস্ব ডেস্ক সিএনবি:
মহেশখালীতে একাধিক মামলার পলাতক আসামী দূর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মকসুদ অস্ত্র,গুলি ও ইয়াবা সহ গ্রেপ্তার।
মহেশখালীতে পুলিশের অভিযানে একাধিক মামলার পলাতক আসামী দূর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মকসুদ (৪০)কে ০১টি দেশীয় তৈরী এলজি ও ০২ রাউন্ড কার্তুজ ২০ পিছ ইয়াবা সহ গ্রেপ্তার করেছে মহেশখালী থানা পুলিশ।
গ্রেফতারকৃত দূর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মকসুদ (৪০) মহেশখালী পৌরসভাস্থ ০৮ নং ওয়ার্ডের মাঝের পাড়া এলাকার মৃত সোলতানের পুত্র বলে জানাগেছে।
থানা সূত্রে জানাযায়ঃ-


এসআই(নিঃ)/ মোঃ শাহজাহান সঙ্গীয় এএসআই(নিঃ)/রিকন চাকমা, এএসআই(নিঃ)/ হাইসিং মং মার্মা,সঙ্গীয় ফোর্সসহ পুলিশের একটি ইউনিট মহেশখালী থানার জিডি নং-১৪৯, তারিখ-০৩/১০/২০১৯খ্রিঃ মূলে ওয়ারেন্ট তামিল ও মাদক উদ্ধার অভিযান পরিচালনা সহ রাত্রিকালীন আইন-শৃংখলা ডিউটিতে নিয়োজিত থাকা কালে অদ্য ০৪/১০/২০১৯খ্রিঃ তারিখ ০১:৫০ ঘটিকায় মহেশখালী থানাধীন ছোট মহেশখালী ঠাকুরতলা অবস্থান কালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানিতে পারেন যে, জিআর-০৩/১০, জিআর-১৯৬/১০ এর পরোয়নাভুক্ত পলাতক আসামী মকছুদ (৪০) মহেশখালী থানাধীন আদিনাথ জেটি রোড এর উত্তর পাশে জালি পাড়া রাস্তার মুখে অবস্থান করিতেছে। বিষয়টি মোঃ শাহজাহান অফিসার ইনচার্জ সাহেবকে অবগত করিলে তিনি দ্রুত পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নির্দেশ দেন।

তখন  এসআই মোঃ শাহজাহান  সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ মহেশখালী থানাধীন আদিনাথ জেটি রোড এর উত্তর পাশে জালি পাড়া রাস্তার মুখে অদ্য ০৪/১০/২০১৯খ্রিঃ তারিখ ০২:০৫ ঘটিকায় পৌঁছাইলে ০২ জন লোক দৌঁড়ে পালানোর সময় সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সের সহায়তায় ০২:১০ ঘটিকায় আসামী মকসুদ মিয়াকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন। অপর জন পালিয়ে যায়।

গ্রেফতারকৃত আসামীকে তাহার নাম ঠিকানা জিজ্ঞাসা করিলে উপরোক্ত নাম ঠিকানা প্রকাশ করে এবং তাহার নামে উপরে বর্ণিত গ্রেফতারী পরোয়ানা আছে মর্মে স্বীকার করে। 

পালিয়ে যাওয়া ব্যক্তি সম্পর্কে আসামীকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাদে সে জানায় যে, পালিয়ে যাওয়া ব্যক্তির নাম রহমত(২৯), পিতা-জালাল আহাম্মদ, সাং-মাছ বাজারের পাশে, গোরকঘাটা, মহেশখালী পৌরসভা, থানা-মহেশখালী, জেলা-কক্সবাজার। তাহারা পরস্পর মাদক বিক্রেতা এবং প্রায়ই সময় অত্র থানা এলাকায় চুরি, ছিনতাইকারী, দস্যুতা ও ডাকাতি করিয়া থাকে বলে স্বীকার করে।

আসামীকে গ্রেফতারকালীন তাহার ডান হাতে থাকা একটি  প্লাষ্টিকের বস্তা পাইয়া উপস্থিত সাক্ষীদের উপস্থিতিতে  তল্লাশী করিয়া ব্যাগের ভিতর ০১টি দেশীয় তৈরী একনলা বন্দুক, যাহা কাঠের বাটসহ লম্বা অনুমান ৩৩ ইঞ্চি, কাঠের বাটের অংশ সাদা ও লাল কসটেপ দ্বারা মোড়ানো অবস্থায় পাইয়া এবং আসামী মকসুদ মিয়ার দেহ তল্লাশীকালে তাহার পরিহিত প্যান্টের ডান পকেট হইতে আসামী নিজ হাতে বাহির করিয়া দেওয়া মতে ০২টি তাজা কার্তুজ, ০১টি সাদা অপরটি নীল রংয়ের পাইয়া এবং আসামীর পরিহিত বাম পকেট আসামী নিজ হাতে বাহির করিয়া দেওয়া মতে ২০(বিশ) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সাদা পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় পাইয়া অদ্য ০৪/১০/২০১৯খ্রিঃ তারিখ ০২:৩০ ঘটিকায় টর্চ লাইটের আলোতে জব্দ তালিকা মূলে জব্দ করেন। 


আসামীকে উদ্ধারকৃত অস্ত্র গুলি এবং মাদক নিজ দখলে রাখার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদে সে কোন বৈধ কাগজপত্র প্রদর্শন করতে পারে নাই। 
তখন উপস্থিত লোকজন মৌখিক ভাবে জানায় যে, সে দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় অবৈধ অস্ত্র প্রদর্শন করিয়া চুরি, ছিনতাই, দস্যুতা, ডাকাতিসহ অবৈধ মাদক বিক্রি করিয়া আসিতেছে।  
গ্রেফতারকৃত আসামী মকসুদ কে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় পলাতক আসামী রহমত সহ তাহারা মাদক দ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রির উদ্দেশ্যে  অবৈধ অস্ত্র সহ উক্ত স্থানে অবস্থান করিতেছিল।
আসামীদ্বয় পরস্পর যোগসাজসে অবৈধ অস্ত্র ও কার্তুজ নিজ দখলে রাখিয়া ১৮৭৮ সনের অস্ত্র আইনের ১৯-অ ধারার অপরাধ করিয়াছে। আসামী মকসুদ মিয়ার এবং পলাতক আসামী রহমত দ্বয় অবৈধ মাদক দ্রব্য বিক্রি উদ্দেশ্যে নিজ দখলে রাখার অপরাধে তাহাদের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ৩৬(১) এর ১০(ক) ধারায় পৃথক এজাহার দায়ের করা হইয়াছে। 
গ্রেফতারকৃত আসামী মকসুদ (৪০), পিতা-মৃত সোলতান, সাং-গোরকঘাটা, সিকদার পাড়া, মহেশখালী পৌরসভা’কে বিজ্ঞ মহেশখালী আমলী আদালতে প্রেরণ করা হইয়াছে। 
স্থানীয় সূত্রে জানাযায়ঃ-  


গ্রেফতারকৃত  আসামী মকসুদ মহেশখালী থানার বিভিন্ন এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই করিয়া আসিতেছে এলাকার নিরীহ লোকজন ভয়ে তাহার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সাহস পায় না।  
এদিক একাধিক মামলার আসামী মকসুদকে গ্রেফতারের সংবাদ এলাকায় প্রকাশ হওয়ায় এলাকার স্থানীয় লোকজন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে। এবং সকলে মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।      
উক্ত বিষয়ে মহেশখালী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর সত্যতা নিশ্চিত করেন। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here