একবার পড়ুন পাল্টে যাবে পুরুষের প্রতি ভুল ধারণা

0
91

মোজাম্মেল হক, কক্সবাজার:    গাঁধা কে সৃষ্টি করার পর তাকে বলা হলো সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তোমাকে ক্লান্তহীনভাবে পরিশ্রম করতে হবে। সারা জীবন ভারি বোঝা বয়তে হবে মাথায় কোন বুদ্ধি থাকবে না। বিনিময়ে সে খেতে পাবে ঘাস। আর তাঁর আয়ু হবে ৫০ বছর। গাঁধা করজোরে সৃষ্টিকর্তাকে বললো আমি এত বছর বাঁচতে চাই না। আমাকে ২০ বছর আয়ু দেয়া হোক। সৃষ্টিকর্তা সেটাই মঞ্জুর করলো। 

কুকুরকে যখন সৃষ্টি করা হলো তখন তাকে বলা হলো সে হবে মানুষের সবচেয়ে বিশ্বস্ত বন্ধু কিন্তু সে খাবে মানুষের উচ্ছিষ্ট এবং তার আয়ু হবে ৩০ বছর। কুকুর সৃষ্টিকর্তাকে বললো আমি এতদিন বাঁচতে চাই না আমাকে ১৫ বছর আয়ু দেয়া হোক। সৃষ্টিকর্তা তা মঞ্জুর করলো। 

এরপর বানর, বানর কে বলা হলো তুমি গাছের এই ডাল থেকে ঐ ডালে ঝুল খাবে নানান রকম ফন্দি ফিকির করে মানুষকে আনন্দ দেবে আর তোমার আয়ু হবে ২০ বছর। বানর বললো আমি ২০ বছর বাঁচতে চাই না আমাকে ১০ বছর আয়ু দেয়া হোক এবং সেটাই মঞ্জুর করা হলো। 

এবার এলো পুরুষের পালা, তাকে বলা হলো তুমি হলে প্রাণীকূলে সবচেয়ে বিচক্ষণ এবং বুদ্ধিমান সেজন্যে তোমাকে প্রাণীদের শিরোমনি করা হলো। এবং তোমার আয়ু হলো ২০ বছর। তখন পুরুষ মানুষ করজোরে বললো হে সৃষ্টিকর্তা ২০ বছর আয়ু হলো অত্যান্ত কম। ঐ যে গাঁধা ৩০ বছর আয়ু চাইনি সে ৩০ বছর আমাকে দেয়া হোক,ঐ যে কুকুর ১৫ বছর ফিরিয়ে দিয়েছিল সেটাও আমাকে দেয়া হোক, আর যে বানর ১০ বছর নেয় নি সেটাও আমাকে দেয়া হোক, ২০ বছর আয়ু অত্যান্ত কম আমি দীর্ঘদিন বাঁচতে চাই। সৃষ্টিকর্তা সেটাও মঞ্জুর করলেন।   
তারপর কি হলো জানেন???সেই থেকে ছেলেরা পুরুষ মানুষ হিসেবে বাঁচে ২০ বছর, তারপরের ৩০ বছর সংসারের বোঝা কাঁধে করে বয়ে বেড়ায় সেটা কার মত গাঁধার মত, তারপরের ১৫ বছর তার ছেলে মেয়েরা যা দেয় উচ্ছিষ্ট ঠিক কুকুরের মত খেয়ে বাঁচে,আর তারপরে বৃদ্ধ বয়সে হা হা হা ঠিক বানরের মত যেমন গাছের এই ডাল থেকে ঐ ডালে ঝুল খায় বানর তেমনি এই ছেলের বাড়ি থেকে ঐ ছেলের বাড়ি আর নানান রকম ফন্দি ফিকির করে তার নাতি নাতনীদের আনন্দ দেয়ার চেষ্টা করে। এই হলো পুরুষ মানুষের আসল রহস্যঘেরা কাহিনী। 
কাউকে দুঃখ বা ছোট করার জন্য লিখা হয় নি।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here