আবরার হত্যার আসামী অমিত সাহা ডিবি পুলিশের হাতে আটক

0
71

মোজাম্মেল হক, কক্সবাজার সদরঃ আবরার হত্যার অন্যতম আসামী অমিত সাহা ডিবি পুলিশের যৌথ অভিযানে আজ বৃহস্পতিবার সকাল এগার টায় রাজধানীর শাহজাহানপুর কালিমন্দির থেকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।

এ নিয়ে আবরার হত্যার ঘটনায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মুহতাসিন ফুয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল সহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ মেলায় বুয়েট শাখার সহ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ ১১ জন কে স্থায়ী বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ।

বুয়েটের ছাত্র আবরার পড়ার টেবিলে বসেই একটি গাণিতিক সমস্যা সমাধান করছিল হঠাৎ তার ডাক পড়েন উপরে যাবার। কেউ কি জানে যে তাঁর এই ডাক হবে জীবনের শেষ ডাক। সে ডাকে সাড়া দিয়ে ফিরেছে লাশ হয়ে আবরার। অমিত সাহা বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নং কক্ষের ছাত্র। সেখানে আবরার কে নির্মমভাবে পাশবিক নির্যাতনের মাধ্যমে হত্যা করা হয়েছে। বিষয় টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের যুগ্ন- কমিশনার মাহবুব আলম।    

আবরার হত্যাকান্ডে অমিত সাহা যে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত সেই অভিযোগ দু দিন আগে থেকে জানা গিয়েছে বুয়েটের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। কারণ আবরার ফাহাদ হলে আছেন কিনা দু দিন আগে খোঁজ খবর নিয়েছেন অমিত সাহা।  আবরার হলে আছে তা খবর পাওয়ার পর এক ঘন্টার মধ্যেই তাকে ১০১১ নং কক্ষে ডেকে নিয়ে লাঠি, স্ট্যাম্প দিয়ে বেদড়ং পিঠায় এই অমিত সাহা ও তার দলের ছেলেরা।
ছয়জন মিলে তিন দফায় পাঁচ ঘন্টা বেধড়ক পিঠিয়ে হত্যা করেছে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ কে। ইফতি মাহবুব সকালের নেতৃত্বে ৬ অক্টোবর রাত ৯ টায় শুরু হয় মারপিঠ।

কলেজ সুত্রে জানা যায়,  মেহেদী, অনিক,সকাল,জিওন,মনির, ও মোজাহিদ সকলে মিলে দফায় দফায় পাশবিক নির্যাতনের মাধ্যমে আবরার কে মৃত্যুর কোলে পাঠাতে বাধ্য করেছেন। 

এর আগে ভারতের সাথে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় তার উপর চড়াও হন তারা এবং তাকে খুন করে শিবির বলে চালিয়ে দিতে চেয়েছিল খুনীরা কিন্তু সে একজন অতি দরিদ্র ও রাজনৈতিক অঙ্গনের সাথে জড়িত ছিলেন না বলে জানিয়েছেন কলেজ ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা।

আরো বিভিন্ন সুত্রে জানা যায় কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছিলেন না বলে নিশ্চিত করেছেন তার পরিবারের সদস্য সহ তাঁর সহ পাঠিরা। তবে বুয়েট কলেজের আবরার হত্যার সমস্ত তথ্যের ভিক্তিতে যে ডকুমেন্ট ছিল তা খুনীরা ডিলিট করার চেষ্টা করেও ব্যার্থ হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here